ফরিদপুরে জগদ্বন্ধু সুন্দরের ১৪৯তম আবির্ভাব দিবস উপলক্ষ্যে চলছে মহা উৎসব - SHOMOYSANGBAD.COM

শিরোনাম

Friday, May 17, 2019

ফরিদপুরে জগদ্বন্ধু সুন্দরের ১৪৯তম আবির্ভাব দিবস উপলক্ষ্যে চলছে মহা উৎসব


সঞ্জিব দাস, ফরিদপুর থেকে :
ফরিদপুরে চলছে শ্রী শ্রী প্রভু জগদ্বন্ধু সুন্দরের ১৪৯ তম আবির্ভাব উৎসব। গত ১২ মে শুরু হওয়া নয় দিনের এ উৎসব চলবে আগামী ২০ মে পর্যন্ত। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ছাড়াও ইন্ডিয়া, নেপাল ও ভুটানসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আসা হাজারো মানুষ প্রতিনিয়ত এ উৎসবে অংশ নিচ্ছেন।

১৪৯ বছর পুর্বে বৈশাখী সীতা নবমী তিথির মাহেন্দ্রক্ষনে ব্রা²মূহুর্তে মর্তলোকে আবির্ভুত হন মহাবতরী শ্রী শ্রী প্রভু জগদ্বন্ধু সুন্দর। তিনি সুদীর্ঘ সপ্তদশ বছর মহাগম্ভীরায় মহামৌনব্রতে বিরাজিত ছিলেন শ্রীধাম শ্রীঅঙ্গণের একটি গবাক্ষহীন কক্ষে। অতপর জীবদ্দশায় তিনি সদাই চেষ্টা করে গেছেন মানবতার প্রতিষ্ঠায়। উৎসবের মূল আয়োজন হবে ১৯ মে  রবিবার অষ্টকালিন লীলা কীর্ত্তনের দিনে। আয়োাজকরা ধারনা করছেন এদিন লাখো ভক্ত সমাগম হবে অনুষ্ঠান স্থলে। 

রমেশ কুমার নামে এক ভক্ত বলেন, আত্মার পরিশুদ্ধির প্রত্যাশা আর জ্ঞানের সঞ্চয়ের আশায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ছুটে আসছেন শ্রীধাম শ্রী অঙ্গনে। তিনি মনে করেন, জগদ্বন্ধুর আকর্ষনে মহা উৎসাহ উদ্দীপনায় এ উৎসবে সমবেত হচ্ছেন লাখো জগদ্বন্ধু ভক্ত।

আরতি নামে এক নারী ভক্ত জানান, নানা বয়সের, ধর্মের, বর্ণের মানুষের এ মহামিলন মেলা সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গীবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত থাকতে উদ্বুদ্ধ করে। একইসাথে জীবন গঠনের সঠিক নির্দেশনা পেতেই তারা ছুটে আসছেন শ্রী অঙ্গনের নয়দিনের এ উৎসবে।

শ্রীধাম  শ্রীঅঙ্গনের সভাপতি কান্তি বন্ধু ব্রক্ষচারী মনে করেন, প্রভু এসেছিলেন মহা উদ্ধারণ রুপায়িত করতে। বিশ্বমানবেরে মহাকল্যাণময় অবস্থা উপহার দিতে সদা সজাগ ছিলেন তিনি। সদাই তিনি গেয়ে গেছেন অসাম্প্রদায়িকতায় জয়গান।

শ্রীধাম শ্রীঅঙ্গন উৎসব আয়োজক কমিটি সাধারণ সম্পাদক বিজ্ঞান বন্ধু
ব্রক্ষচারী জানান, বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ছাড়াও ইন্ডিয়া, নেপাল ও ভুটানসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আসা লাখো মানুষের এ মিলন মেলায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়েছে হিন্দু ও মুসলিমদের সার্বিক সহযোগীতায়। তাদের দাবী, বিভিন্ন ধর্মের মানুষের উপস্থিতি মানুষের সাথে মানুষের সৌহাদ্য সম্প্রিতিকে আরো বাড়িয়ে দেবে, যার প্রতিফলন ঘটবে আগামীর সুস্থ সমাজ গঠনে।

নয় দিনেরএ উৎসবে শ্রীমদ্ভাগবত পাট, মহানাম মহাকীর্তন, তারকব্রক্ষ হরিনাম মহাকীর্তন, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আর শেষ দিনে কুঞ্জভঙ্গ, নগরকীর্তন, জলকেলী ও মহৌৎসবের মাধ্যমে এ আয়োজনের সমাপ্তি ঘটবে আগামী ২০ মে।

No comments:

Post a Comment