সালথা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে চান দেলোয়ার হোসেন - SHOMOYSANGBAD.COM

শিরোনাম

Friday, February 8, 2019

সালথা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে চান দেলোয়ার হোসেন


সঞ্জিব দাস, ফরিদপুর থেকে :
আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ফরিদপুরের সালথা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পেতে নিরোলসভাবে কাজ করে চলছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ দেলোয়ার হোসেন। সম্প্রতি জেলা আওয়ামী লীগের তালিকা থেকে এ পদের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নাম বাছাই করে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। আর এই তালিকায় তার নাম রয়েছে বলে জানাগেছে জেলা আওয়ামীলীগের তরফ থেকে।
 
প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্তির আবেদনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ দেলোয়ার হোসেন উল্লেখ করেন ১৯৭৮ সালে তিনি সরকারী রাজেন্দ্র কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি ফরিদপুর জেলা ছাত্রলীগের সমাজকল্যাণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। পরে অবিভক্ত নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনকালে দলকে শক্তিশালী করনে তিনি ভূমিকা রাখেন। বর্তমানে তিনি সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি  ও  জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। জানা যায়, উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে বিশেষ অবদান রাখায় মোঃ দেলোয়ার হোসেন এশিয়া হিউম্যান রাইটস্ ফাউন্ডেশন কতৃক বিচারপতি সৈয়দ মাহবুব মোর্শেদ স্বর্নপদক প্রাপ্ত একজন ব্যক্তি।
 
উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ মজিবুল হক বলেন, চেয়ারম্যান পদে ১০ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী আবেদন করেছেন। তার মধ্যে একজন তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় একক প্রার্থী চূড়ান্ত করা সম্ভব না হওয়ায় মতামতের ভিত্তিতে ৯ জন প্রার্থীর তালিকাই জেলা আওয়ামী লীগের মাধ্যমে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিবে।
 
এ ব্যাপারে মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, ২০০১ সালে বিএনপি- জামাত সরকারের সময়ে আমার ও আমার সমর্থদের বিরুদ্ধে ১৭টি মিথ্যা মামলায় হয়রানী করা হয়। এ সময় আমাকে ৮ মাস কারাবন্দী রাখা হয়। ১/১১র ফখরুদ্দীন-মইনুদ্দীন সরকারের সময়ে আমাকে ৯ মাস কারান্তরীন রাখা হয়। এ ছাড়া ২০১৫ সালে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ওয়াহিদুজ্জামানের আওয়ামী লীগে যোগদান অনুষ্ঠানে আমাকে ও আমার ভাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। তাছাড়া ঐ সময় আমার ও আমার সমর্থকদের বিরুদ্ধে ১২টি মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়। যাতে আমি ১০ মাস কারাগারে থাকি। আমি আশাবাদী সংগঠনে আমার শ্রম ও বিএনপি-জামাতের হয়রানীমূলক মামলায় কারাভোগের দূরাবস্থা বিবেচনা করে দল আমাকে মনোনয়ন দিবে।
 
উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতাকর্মি জানান, সালথা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে মোঃ দেলোয়ার হোসেনই বেশী গ্রহন যোগ্য। তবে দল যাকে মনোনয়ন দিবে তারা তার পক্ষেই কাজ করবেন তারা।
 
এদিকে দেলোয়ার হোসেন সালথা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন গুলোতে দিনরাত প্রচার ও প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন নেতাকর্মি ও সাধারন মানুষের সাথে।

No comments:

Post a Comment