ধানমন্ডিতে জোড়া খুন, এই মেয়েটিকে খুঁজছে পুলিশ - SHOMOYSANGBAD.COM

শিরোনাম

Saturday, November 02, 2019

ধানমন্ডিতে জোড়া খুন, এই মেয়েটিকে খুঁজছে পুলিশ

অপরাধ ডেস্ক:-

রাজধানীর ধানমন্ডিতে জোড়া খুন হওয়া গৃহকর্ত্রী আফরোজা বেগম ও গৃহকর্মী দিতি হত্যার ঘটনায় ওই ফ্ল্যাটের নতুন গৃহকর্মীকে খুঁজছে পুলিশ। ভবনের সিসিটিভি ফুটেজে গৃহকর্মীর সন্দেহজনক চালচলন দেখে আপাতত তাকেই প্রধান অভিযুক্ত ধরে চলছে তদন্ত।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ধানমন্ডি ২৮ নম্বর রোডের ২১ নম্বর বাড়ির একটি ফ্ল্যাট থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল লতিফ জানান, ধারালো ছুরি দিয়ে জবাই করে তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার বাড়িটির ওই ফ্ল্যাটে ২১ বছর বয়সী নতুন একজন গৃহকর্মী নিয়োগ দেওয়া হয়। তবে হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর নতুন রাখা ওই গৃহকর্মীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। 

এ ঘটনায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। তারা হলেন- বাড়ির নিরাপত্তাকর্মী, আফরোজার জামাতা কাজী মনির উদ্দিনের বডিগার্ড বাচ্চু এবং ভবনের ইলেকট্রিশিয়ান বেলায়েত।

সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ যাচাই করে দেখা গেছে, মেয়েটি দুপুর ২ টা ২০ মিনিটে ভবনের গেটে আসে। মেয়েটির পরনে ছিল জিন্সের প্যান্ট, কামিজ ও ওড়না। মেয়েটি প্রথমে ভবনের ভেতরে আফরোজা বেগমের ফ্ল্যাটে ঢোকার চেষ্টা করছিল। তবে গেটে নিরাপত্তাকর্মী তাকে বাধা দিলে তিনি মোবাইলফোনে একটি কল করেন। পরে ওপর থেকে বাচ্চু এসে তাকে নিয়ে যায়। বিকেল সাড়ে ৫টায় মেয়েটি বের হয়ে যায়। তবে বাচ্চু এর আরো আগেই ভবন থেকে বের হয়ে গিয়েছিল। এ পর্যন্ত মেয়েটির নামপরিচয় কিছুই জানতে পারেনি পুলিশ।

তদন্ত সূত্র বলছে, মেয়েটি বাচ্চুর পূর্ব পরিচিত হতে পারে। তাকে গেটে বাধা দেয়া হলে সে বাচ্চুর মোবাইল নম্বরে ফোন দেন। বাচ্চু নিচে এসে তাকে রিসিভ করে নিয়ে যান।

তবে বাচ্চু পুলিশের কাছে দাবি করে, গতকালের আগে মেয়েটির সঙ্গে তার দেখা কিংবা কথা হয়নি। তবে এ ঘটনার পর স্থানীয় ওই পানওয়ালাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তদন্তের বিষয়ে পুলিশের ধানমন্ডি জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আবদুল্লাহ হেল কাফী বলেন, ‘তদন্ত চলছে। মেয়েটিকে ধরতে পারলে সব রহস্যের উদঘাটন হবে। আমরা তাকে আটক করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

ঘটনার ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলা করেননি পরিবারের কেউ। পুলিশ বলছে, পরিবারের লোকজন বলছে তারা রাতে মামলা করবে।

গো নিউজ২৪/আই

No comments:

Post a Comment