ফরিদপুরে নিরাপদ খাদ্য সুনিশ্চিত করতে কাজ করছেন নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক ও তার টীম - SHOMOYSANGBAD.COM

শিরোনাম

Thursday, December 6, 2018

ফরিদপুরে নিরাপদ খাদ্য সুনিশ্চিত করতে কাজ করছেন নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক ও তার টীম


ফরিদপুর প্রতিনিধি
“সেফ ফুড গুড ফুড” এই কথাটি বাস্তব তখনই হয় যখন এর পর্যাপ্ত ভাবে তদারকি রাখে এর সাথে জরিত প্রশাসন। নিরাপদ খাদ্য সুনিশ্চিত করার এই কাজটিই ফরিদপুরে বিশেষভাবে ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন জেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর তথা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক বজলুর রশিদ খান ও তার টীম। তিনি জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রশাসন নিয়ে গিয়ে বিভিন্ন অভিযান সহ তদারকি রাখার কারনে জেলায় সেফ ফুড গুড ফুড কথাটি বাস্তবময় হয়ে উঠেছে।  

এ ব্যাপারে গত এক বছরের এক চিত্রে দেখা যায় তার নেতৃত্বে জেলা জুরে গত জানুয়ারী' ২০১৮ হতে নভেম্বর মাস পর্যন্ত মোট অভিযান হয়েছে ২৮৯ টি,  মামলা হয়েছে ৫০৪ টি, জরিমান আদায় হয়েছে মোট ১৯ লক্ষ ৪৪ হাজার টাকার। আর বিভিন্ন অপরাধের কারনে জেল দেয়া হয়েছে ৭ জনের।

ফরিদপুর শহরের খুবই পুরাতন পাচঁ তারা হোটেল এন্ড রেষ্টুরেন্টের মালিক লিয়াকত হোসেন লিটন জানান, জেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর তথা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক বজলুর রশিদ খান খুবই ভালো মনের মানুষ। তিনি আমাদের সকল বিষয়ে ন্যনুতম যে রেট সরকার নির্ধারিত সেখান থেকেও কম নিয়ে আমাদের কাজ করে দেন। কোন সময় বাড়তি কোন টাকা পয়সা নেন না। তবে তার একটাই কথা হোটেল পরিস্কার পরিছন্ন ও খাবার ভালো হতে হবে। যাতে কাষ্টমাররা খাবার খেয়ে ভালো বলেন। 

এদিকে ফরিদপুরের প্রসিদ্ধ মিষ্টির দোকান জনতা ব্যাংক মোড়ের বাগাট মিষ্টির দোকানের কর্মচারী অম্বিনী ঘোষ বলেন আমরা খুব ভালো আছি। কোন ডির্ষ্টাব করে না নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক অফিস থেকে।      

এ ব্যাপারে জেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর তথা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক বজলুর রশিদ খান বলেন, আমিসহ আমাদের প্রশাসনিক টীম জেলায় সেফ ফুড গুড ফুড কথাটি বাস্তবায়নে কাজ করছি নিরন্তর ভাবে। তিনি বলেন স্বচ্ছ একটি প্রশাসন ব্যবস্থা ফরিদপুরে থাকায় এ ক্ষেত্রে আমার কাজ করা আরো বেশী সহজ হচ্ছে। তবে কাজ করার সময় অনেক বাধা আসে আমাদের আমরা সকল বাধা দূর করে কাজ করে চলছি সব সময়। এরপরও প্রভাবশালীরা আমাদের অনেক সমস্যা করে থাকে কাজের ক্ষেত্রে। 

এদিকে তার নেতৃত্বে খাবার হোটেল গুলোতে অভিযানের কারনে ফরিদপুরে হোটেল গুলো এখন অনেক বেশী আধুনিক ও রুচি সম্মত। 

তবে জেলার সচেতন মানুষ তাদের এই অভিযান বিশেষ করে খাবার হোটেল গুলোতে আরো বেশী অব্যাহত রাখবেন এই দাবী জানান।  

No comments:

Post a Comment